ড্রোন নিয়ে কিছু মজার প্রশ্ন ও উত্তর পর্বঃ১

ড্রোন
Share on facebook
Share on twitter
Share on pinterest

ড্রোন কথাটি আমরা সকলেই শুনেছি, অনেকেই তো ভেবে বসে আছেন ড্রোন দিয়ে শুধু যুদ্ধ করাই যায়। এছাড়া আর অন্য কিছু করা যায় না। এছাড়াও আমাদের  মনের মাঝে ড্রোন নিয়ে আরো অনেক প্রশ্ন জমা হয়ে আছে। আমরা আলোচনা করবো আপনাদের সেই সকল মনের মাঝে  থাকা প্রশ্ন গুলো নিয়ে। সাথে আমরা চেষ্টা করবো আপনার সেই সকল প্রশ্ন গুলোর উত্তর দেয়ার জন্য।

ড্রোন কি

ড্রোন হচ্ছে এমন একটা বিমান বা উড়োজাহাজ যেটা পাইলট বাদেই চলাচল করতে পারে। ড্রোনের আবিধানিক অর্থ হচ্ছে গুঞ্জন, এই নামটি হয়েছে মৌমাছির গুঞ্জন করার শব্দ থেকে। আপনি জানতে চান ড্রোন কিভাবে কাজ ও ড্রোন কি? এর বিস্তারিত  আলোচনা আমাদের এই পোস্টে করা আছে এখানে থেকে পড়ে আসতে পারেন।

ড্রোন কি বৃষ্টি বা তুষারের মাঝে উড়তে পারে?

হ্যাঁ, ড্রোন বৃষ্টি বা তুষারের মাঝেও উড়তে পারে। যদিও এটা কয়েক বছর আগেও সম্ভব ছিল না। কিন্তু এখন যে সকল নতুন আপডেট ড্রোন গুলো এসেছে সেই গুলো বৃষ্টির মাঝেও উড়তে সক্ষম। যেমন DJI Phantom 4 Wetsuit এই ড্রোন টা। এটা হচ্ছে ওয়াটকার প্রুফ একটা ড্রোন, যেটা বৃষ্টির মাঝেও উড়ে যেতে সম্ভব।

বেসিক কম্পিউটার নিরাপত্তাঃ কিভাবে ভাইরাস, হ্যাকার এবং চোর থেকে নিজের কম্পিউটারকে রক্ষা করবেন?

ড্রোন কি হ্যাক করা সম্ভব?

এই  প্রশ্ন টা আমাদের সকলের মনেই কিন্তু আছে, বিশেষ করে যারা একটু টেক গিক ধরণের তারা তো খুবই আগ্রহী। যদিও আমার নিজের মনেও এই প্রশ্ন টা অনেক দিন ধরে ছিল। আসলে সত্য কথা বলতে ড্রোন হ্যাক করা সম্ভব। ড্রোন হ্যাক নিয়ে কালি লিনাক্সের অনেক টুল আছে। ড্রোনের মাঝে যে প্রোগ্রাম করা আছে মূলত সেই গুলো পরিবর্তন করে হ্যাক করা হয়ে  থাকে। এছাড়াও ড্রোন ভিডিও গুলো মূলত শেয়ার হয় ওয়ার্লেস নেটওয়ার্কের মাধ্যমে। এই ওয়ার্লেস নেটওয়ার্কেও অনেক ভারনাবিলিটি পাওয়া গেছে।

কিছু প্রয়োজনীয় উইন্ডোজ কমান্ড, যা সম্পর্কে আপনার জানা উচিৎ।

যুদ্ধ ক্ষেত্রে কখন ড্রোন ব্যবহার করা হয়?

ড্রোন নাম টা আমাদের কাছে পরিচিত হয়েছে আমেরিকা-আফগানিস্থান যুদ্ধের পরে। তার আগে আমরা কিন্তু কেও জানতাম না ড্রোন বলেও কিছু আছে কিনা। আর ২০০২ সালে আমেরিকা-আফগানিস্থান যুদ্ধের সময় প্রথম ড্রোনের ব্যবহার করা হয়। শুধু যদ্ধ ক্ষেত্রেই না বলতে পারেন ইভুলুশোন ঘটেছে এই সময়ের পরেই।

কখন ড্রোন প্রথম ব্যবহার করা হয়

১৯১৮ সালের দিকে আমেরিকান নেভি ড্রোন ব্যবহার করেন। যদিও সেই সময়ের ড্রোন আর এই সময়ের ড্রোনের মাঝে রয়েছে আকাশ পাতাল পার্থক্য।

ড্রোন চালানো কি বৈধ

ড্রোন
ড্রোন

আসলে সত্য কথা বলতে একেক দেশে একেক নিয়ম। অনেক দেশেই ড্রোন চালানো সম্পুর্ন ভাবে নিষেধ। আবার অনেক দেশেই কিছু কিছু প্রতিষ্ঠানকে তাদের কাজের জন্য ড্রোন ব্যবহার করতে দেয়া হয়। আমাদের দেশের কথা যদি বলতে হয়, আসলে আমাদের দেশে ড্রোন চালাতে গেলে ড্রোন কে রেজিট্রেশন করতে হয়। রেজিট্রেশন বাদে ড্রোন চালানো সম্পূর্ন বে-আইনী। এটা শুধু আমাদের দেশেই না, পৃথিবীর প্রায় সকল দেশেই এই নিয়ম টা রয়েছে।

আজকের মত এতটুকুই, আগামী পর্বে হয়তো আরো নতুন কোন বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো। আপনার যদি কোন প্রশ্ন থেকে থাকে তাহলে আমাদের কমেন্ট সেকশনে জানাবেন।

Subscribe to our Newsletter

আমাদের কাছে আপনার ইমেইল দিন, সর্বশেষ আর্টিকেল আপনাকে ইমেইল করা হবে। আমরা কখনো স্প্যাম করি না, সুতরাং নিশ্চিন্তে থাকতে পারেন। 

Share this post with your friends

Share on facebook
Share on google
Share on twitter
Share on linkedin

Add comment

এই ব্লগ টি সম্পূর্ণ বাংলা ভাষায় করা। বাংলাতে এমন কিছু কনন্টেট আমরা দিয়ে থাকি, যা আপনার উপকারে আসবে।

গুরুত্বপূর্ণ লিংক

  • About
  • Contact
  • Support

Newsletter

© 2018 All rights reserved​

Made with ❤ with Elementor​